ওলিও’র উদ্যোগে খাদ্যসামগ্রী পৌঁছে দেয়ার জন্য কর্মহীনদের ভোটার আইডি সংগ্রহ করছেন

স্টাফ রিপোর্টার: করোনাভাইরাসের কারণে গত ২৫ মার্চ থেকে সারা দেশে যখন হোম কোয়ারেন্টাইন ঘোষণা করা হয় তখন কর্মজীবিরা কর্মহীন হয়ে বাড়িতে রয়েছে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার সাধারণ কর্মহীন মানুষও সরকার ঘোষিত হোম কোয়ারেন্টাইনে রয়েছে। ফলে কর্মহীন কর্মজীবিরা যারা দিনাতিপাত করে জীবন সংসার যাপন করে তারা হয়ে পড়ে বেকার, কর্মহীন। তাদের পাশে সরকার দাঁড়ানোর পাশাপাশি সমাজের বিত্তবান ব্যক্তিরাও এগিয়ে এসেছেন।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলা চেয়ারম্যান লায়ন ফিরোজুর রহমান গত ১লা এপ্রিল থেকে ঘোষণা করেছিলেন যতদিন মানুষ হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকবে সদর উপজেলার সকল কর্মহীনদের নিজ উদ্যোগে খাদ্যসামগ্রী দিবেন বলে জানিয়েছিলেন। এরই ধারাবাহিকতায় তিনি বিভিন্ন ইউনিয়ন পরিষদের অসহায় জনগণকে খাদ্যসামগ্রী দিয়ে যাচ্ছেন।

এ নিয়ে বিভিন্ন ইউপি চেয়ারম্যান, মেম্বারগণ ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেছেন, আমাদের সদর উপজেলা চেয়ারম্যান নিজ উদ্যোগে অসহায় মানষদের খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করছেন যা আমাদের সাথে কোন সমন্বয় করছেন না। ফলে দেখা যায় একেকজন ব্যক্তি ৩/৪ বার করেও খাদ্যসামগ্রী পাচ্ছেন। আবার দেখা যাচ্ছে অনেকে একবারও পাচ্ছেন না। এ ব্যাপারে তিনি সকলের সাথে সমন্বয় করার জন্য আহবান জানিয়েছেন। অনেকেই বলেন, আমাদের সাথে যোগাযোগ করুক বা না করুক তাতে কোন আপত্তি নেই, তিনি যেন এলাকার সঠিক মানুষদের মাধ্যমেই অসহায় মানুষদেরকে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করেন।

এ বিষয়ে উপজেলা চেয়ারম্যান লায়ন ফিরোজুর রহমানের সাথে কথা বললে তিনি জানান, যেহেতু করোনা একটি মহামারী ব্যাধি সেহেতু আমাদের সরকার জননেত্রী মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ঘোষণায় আমি নিজ উদ্যোগে কর্মহীন অসহায় মানুষের মাঝে খাদ্যসামগ্রী দিচ্ছি। আমি সকলকেই তাদের ভোটার আইডি কার্ডের ফটোকপি নিয়ে আমাদের সাথে যোগাযোগ করার জন্য মাইকিং করিয়েছি। এক যোগে সকল ভোটারগণ যদি চেয়ারম্যান মেম্বারগণের কাছে যায় তাহলে তারা হয়তোবা বিষয়টি খারাপভাবে নিতে পারে তাই আমি এর জন্য মাইকিং করিয়েছি। অসহায় মানুষের ভোটার আইডি কার্ড নিয়ে আমি নিজেই ইউপি চেয়ারম্যান, মেম্বারগণের কাছে যাবো এবং তাদের সহযোগিতায় বাছাই করে অসহায়দেরে মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করবো।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন