মধ্যবিত্ত পরিবারের খাদ্যসামগ্রীর জন্য ৩৩৩ হটলাইনে কল দিলেই ঘরে পৌঁছে যাবে

 

স্টাফ রিপোর্টার: করোনা ভাইরাসে প্রভাবে দেশ আজ প্রাকৃতিকভাবে নাকাবন্দী। করোনার ভয়ে মানুষ ঘর থেকে বের হতে পারছে না। কাজে যোগ দিতে পারছে না। ফলে কর্মহারা লোকদের খাদ্যের সঙ্কট দেখা দিয়েছে। এমতাবস্থায় প্রধানমন্ত্রী নির্দেশনা অনুযায়ী ৬৪ জেলায় প্রশাসন কর্তৃক ঘরে ঘরে খাদ্যসামগ্রী পৌঁছে দেয়ার জন্য সর্বোচ্চ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। তারই ধারাবাহিকতায় রবিবার ৪এপ্রিল সদর উপজেলার মাছিহাতা ইউনিয়নের চিনাইরা গ্রামে শেখ হাসিনা আশ্রয়ণ প্রকল্পে থাকা খেটে খাওয়া মানুষদের সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করেছেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা পঙ্কজ বড়ুয়া।

 

তিনি বলেন, করোনা মোকাবেলায় আমাদের মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর দিকনির্দেশনায় আমরা কর্মহীন মানুষদের নিকটে খাদ্যসামগ্রী পৌঁছে দিচ্ছি। মানুষ আজ করোনা ভাইরাসের আতঙ্কে ঘর বন্দী রয়েছে। ফলে সকল কর্মজীবি মানুষ আজ কর্মহীন হয়ে পড়েছে। আমরা চাই মানুষ ঘরে থাকুক, খাদ্যসামগ্রী চাল, ডাল, আলু, তেল জাতীয় দ্রব্য আমরাই তাদের নিকট পৌঁছে দিচ্ছি যেন, মানুষের মাঝে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ আঘাত করতে না পারে। ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলায় ৩টি শেখ হাসিনা আশ্রয়ণ প্রকল্প রয়েছে আমীরপাড়া, মজলিশপুর ও চিনাইর। এ ৩টি প্রকল্পে মোট ১৫০টি পরিবার রয়েছে। আমরা সকলকেই খাদ্যসামগ্রী পৌঁছে দিয়েছি।

মধ্যবিত্ত পরিবারের জন্য আপনাদের করণীয় কী এমন প্রশ্নে তিনি নারীশিশুকে জানান, যেহেতু করোনা ভাইরাস সবার জন্যই আতঙ্ক আর মধ্যবিত্ত পরিবারের মানুষ লজ্জায় কারো নিকট যেতে বা চাইতে পারছে না। তাদের জন্য আমাদের ৩৩৩ হটলাইন চালু রয়েছে। তারা এ নাম্বারে কল দিলেই আমরা তাদের বাড়িতে খাদ্যসামগ্রী পৌঁছে দেয়ার ব্যবস্থা করবো। এ ছাড়াও তিনি মাছিহাতা ইউনিয়ন পরিষদে ১০টাকা কেজি মূল্যের চাল বিতরণের উদ্বোধন করেছেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন সদর উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক এএসএম মাহবুব আলম, মাছিহাতা ইউপি চেয়ারম্যান মো. আল আমীনুল হক পাভেল প্রমূখ।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন