সেবা-ই যেন তাঁর প্রধান ধর্ম।। দীপক চৌধুরী বাপ্পী

স্টাফ রিপোর্টার: ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় দি ঝুমুর হোটেলের পক্ষ থেকে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে।

আবদুল মালেক ছোট বেলা থেকেই অসহায় মানুষের পাশে থেকে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। গরীব, দু:খি, মেহনতি মানুষের কল্যাণে নিজেকে সর্বদায় নিয়োজিত রেখেছেন। রবিবার (১২এপ্রিল) বেলা ১১টায় ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা শহরের প্রাণ কেন্দ্রে অবস্থিত দি ঝুমুর হোটেলের মালিক আবদুল মালেক নিজ উদ্যোগে ৩০০ কর্মহীন কর্মজীবিদের মাঝে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করেন। খাদ্যসামগ্রী বিতরণের সময় উপস্থিত ছিলেন ব্রাহ্মণড়িয়া প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক দীপক চৌধুরী বাপ্পী, পাঠাগার সম্পাদক মোশারফ হোসেন বেলাল ও কার্যকরী সদস্য মো. মজিবুর রহমান।

খাদ্যসামগ্রী বিতরণকালে ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক দীপক চৌধুরী বাপ্পী বলেন, করোনাভাইরাস সংক্রমণের ভয়ে আজ মানুষ কর্মহীন হয়ে পড়েছে। মানুষ ইচ্ছে করলেও ঘর থেকে বের হতে পারছে না। আমাদের সরকার মাননীয় প্রধানমন্ত্রী মানুষের ঘরে ঘরে খাদ্যসামগ্রী পৌঁছে দেয়ার ব্যবস্থা করেছেন। আজকের পরিস্থিতিতে সরকারের পাশাপাশি সমাজের বিত্তবান মানুষদেরও এগিয়ে আসতে হবে। ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় দি ঝুমুর হোটেলের মালিক আবদুল মালেক সাহেব যেভাবে কর্মহীন মানুষদের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করছেন তা সত্যিই দৃষ্টান্তমূলক। সেবা ই যেন তাঁর প্রধান ধর্ম। মালেক সাহেবের মত অন্যরাও যদি এগিয়ে আসে তাহলে সমাজে কোন মানুষের খাবার নিয়ে কষ্ট করতে হবে না। ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা এখন লকডাউন করা হয়েছে। পুলিশ প্রশাসন, জেলা প্রশাসন ও জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ নিরলসভাবে আমাদের সেবা দিয়ে যাচ্ছেন। তিনি সকলকেই ঘরে থাকার জন্য আহবান করেন।

খাদ্যসামগ্রীর মধ্যে রয়েছে চাল, ডাল, আলু, পিঁয়াজ, তেল, লবণ, সাবান ইত্যাদি।

উল্লেখ্য যে, আবদুল মালেক ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় হোম কোয়ারেন্টাইন ঘোষণা হওয়ার পর থেকে কর্মহীন মানুষদের নিজ উদ্যোগে খাদ্যসামগ্রী দিয়ে যাচ্ছেন। কখনো মটর সাইকেল চালিয়ে, কখনো রিকশায় করে, কখনো বা কাঁধে নিয়ে খাদ্যসামগ্রী মানুষের বাড়ি বাড়ি পৌঁছে দিচ্ছেন।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন