নোঙর পরিবারের শোক প্রকাশ নোঙর কেন্দ্রীয় সভাপতি সুমন শামস সহ সদস্যদের মন কাঁদছে।

বিশ্বজুড়ে একের পর এক দুর্ঘটনা ঘটেই চলছে। নোঙর কেন্দ্রী সভপতি সুমন শামস জানালেন বছরটা মোটেই ভাল যাচ্ছে না। বুড়িগঙ্গা নদীতে সোমবার ঘটে ভয়াবহ এক দুর্ঘটনা। সদরঘাট এলাকায় বড় লঞ্চের আকস্মিক ধাক্কায় অর্ধশতাধিক যাত্রী নিয়ে ডুবে যায় মর্নিং বার্ড নামের একটি ছোট লঞ্চ। মর্মান্তিক দুর্ঘটনার কাল বিকেল পর্যন্ত ৩৩ জনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। মহামারী করোনার মধ্যে দেশে এমন দুর্ঘটনায় মন কাঁদছে ও আমি সহ অনেক সদস্য সাথে সাথে ঘটনাস্থলে চলে যায়। মঙ্গলবার করোনায় আক্রান্ত হয়ে বাংলাদেশে সর্বোচ্চ ৬৪ জনের জনের মৃত্যু হয়েছে। কঠিন এই সময়ে লঞ্চডুবির ঘটনাটি মানতে পারছেন না নোঙর পরিবার। করোনা আক্রান্ত হয়ে প্রতিদিন মানুষ চলে যাচ্ছে না ফেরার দেশে। এর মধ্যে আবার বুড়িগঙ্গা নদীর তীরে লঞ্চ ডুবে অনেক মানুষের প্রাণহানি হল। অনেকে এখনোও নিখোঁজ রয়েছে। তাদের স্বজনদের আহাজারিতে ভারি হয়ে উঠছে চার পাশ। সত্যি বলতে আমি কোন ভাবেই নিজেকে সন্তনা দিতে পারছি না। তিনি বলেন পরো পৃথিবীর এই ভয়ংকর ক্রান্তিকালে এমন দুর্ঘটনা কোনো সান্তনা দেয়ার আমার জানা নেই। ভবিষ্যতে এমন অনাকাঙ্ক্ষিত দুর্ঘটনা আর একটিও যেন না ঘটে এমন বাংলাদেশ দেখার প্রত্যাশা করি। সকল শহীদের জন্য সৃষ্টিকর্তার নিকট জান্নাত কামনা করছি। নোঙর ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সভাপতি শামীম আহমেদ বলছেন, বুড়িগঙ্গা নদীতে লঞ্চডুবির ঘটনায় নিরীহ মানুষদের প্রাণহানিতে আমরা নোঙর পরিবার মর্মাহত ও শোকাহত। অত্যন্ত হৃদয়বিদারক মর্মান্তিক একটি দুর্ঘটনা….. বুড়িগঙ্গায় লঞ্চডুবিতে নিহত সবার আত্মার মাগফিরাত কামনা করছি।

নোঙর নদী নিরাপত্তার সামাজিক সংগঠন।

সোহেল খান, নোঙর সদস্য ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন