হৃদরোগ থেকে বাঁচতে চাইলে কী খাবেন –  How to stop a heart attack immediately 10 Way

হৃদরোগ থেকে বাঁচতে চাইলে কী খাবেন – How to stop a heart attack immediately 10 Way

দেহের সবচেয়ে গুরুত্বপুর্ণ অঙ্গ হলো হৃৎপিণ্ড।

হৃদরোগ থেকে বাঁচার জন্য কয়েকটি খাবারে গুরুত্ব দিতে হবে।
অস্বাস্থ্যকর খাবার গুলো খাওয়া বাদ দিতে হবে।।

এখানে এ রকম কয়েকটা খাবারের নাম  তুলে ধরা হলো।

এক প্রতিবেদনে বিষয়টি জানিয়েছে ব্রাইট সাইড।

How to stop a heart attack immediately First 5 Way:

How to stop a heart attack immediately 10 Way 

১. চর্বিযুক্ত মাছ

 

চর্বিযুক্ত মাছ
চর্বিযুক্ত মাছ


ক,,,চিকিৎসকেরা বলছেন, চর্বিযুক্ত মাছে অনেক উপকারী গুণাগুণ রয়েছে।

চর্বিযুক্ত মাছে প্রচুর পরিমানে ওমেগা থ্রি পলিআনস্যাচুরেটেড ফ্যাটি অ্যাসিড রয়েছে।

যা আর্থারাইটিস, হৃদরোগ, ক্যানসার প্রতিরোধ করে। রোগগুলির ঝুঁকিও কম করে।

খ,,,ছোট বয়স থেকে স্যামন মাছ খেলে হাঁপানির ঝুঁকি কম হয়।

গ,,,সমীক্ষায় দেখা গেছে, যে সমস্ত নারীরা নিয়মিত চর্বিযুক্ত বা তৈলাক্ত মাছ খেয়েছেন,

তাঁদের মধ্যে স্তন ক্যানসার -এর সম্ভাবনা কম হয়েছে।

২. ওটমিল

otmil.jpg
otmil.jpg

ফাইবারযুক্ত খাবার খাওয়া হৃদরোগ থেকে বাঁচার অন্যতম উপায়।  ওটমিল সহজে ক্ষুধা মেটায়।

শস্যদানা থেকে তৈরি, ফাইবার সমৃদ্ধ খাবার ক্যান্সারের বিরুদ্ধে বেশ কার্যকর।

২০১১ সালে ব্রিটিশ মেডিক্যাল জার্নালের এক রিভিউ থেকে দেখা যায়,

প্রতিদিন যারা ৯০ গ্রাম করে শস্যদানা জাতীয় খাবার খেয়ে থাকেন,

তাদের কোলোরেক্টাল ক্যান্সারের ঝুকি ২০ শতাংশ পর্যন্ত কমে যায়।আর হজম শক্তি বাড়ে।

৩,বাদাম

badam 2018
Badam

বাদামে প্রচুর প্রোটিন থাকে। গবেষকরা বলেছেন, যারা নিয়মিত বাদাম খায় তাদের গলব্লাডারের পাথর হওয়া রোধ করে।
বাদামে পর্যাপ্ত চর্বি ও প্রোটিন এবং এর চর্বির প্রায় পুরোটাই অসম্পৃক্ত ধাঁচের অর্থাৎ স্বাস্থ্যকর।

এতে ভিটামিন বেশি না পাওয়া  গেলেও পর্যাপ্ত পরিমাণে পটাশিয়াম থাকে।

তাছাড়াও ম্যাগনেসিয়াম সহ প্রয়োজনীয় আরো কিছু খনিজ বাদামে আাছে।

খাদ্য নিয়ন্ত্রণ যারা করেন, তারা ক্যালরি বেড়ে যাওয়ার ভয়ে বাদামের চর্বি এড়িয়ে চলার চেষ্টা করেন।

বাদামে শর্করা সামান্যই আছে। ফলে বাদাম খেলে ওজন বাড়বে না।

৪. আাপেল

Apple 2018
Apple


আপেল একটি অত্যন্ত পরিচিত ফল, যা সব যায়গায় পাওয়া যায়|

দিনে এক থেকে দুইটি আপেল খেলে হার্টের সমস্যা থেকে মুক্ত থাকা যায়|

গবেষণা থেকে পাওয়া গেছে যে– দিনে একটি আপেল খেলে রক্তের ক্ষতিকর LDL Cholesterol কমে|
সেই সাথে আরো জানা গেছে যে, আপেল রক্তের চিনির মাত্রা নিয়ন্ত্রণ করে থাকে। 
Learn more about apple

৫,রসুন

Roshun
Roshun

রক্ত বিষমুক্ত হয় : প্রতিদিন এক গ্লাস গরম পানির সঙ্গে দুটি রসুনের কোয়া খেলে

রক্তে থাকা নানা বিষাক্ত উপাদান শরীর থেকে বেরিয়ে যেতে শুরু করে।
যে সমস্ত হৃদরোগী নিয়মিত রসুন খান, তারা অনেক বেশি অ্যাকটিভ থাকেন৷

How to stop a heart attack immediately last 5 Way:


৬,ডালিম

dalim 2018
dalim

ডালিমের ফুল ঋতুস্রাবজনিত সমস্যার ওষুধ হিসেবে ব্যবহৃত হয়।ডালিম ঠান্ডাজনিত রোগ উপশম করে।

ডালিম অরুচি দূর করে ও খিদে বাড়ায়। দাঁত এবং মুখের রোগ প্রতিরোধে সহায়তা করে।

ডালিম ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি করে। এর রস খুবই ভালো ত্বক পরিষ্কার করে।

৭,তরমুজ

Tormuj
Tormuz

তরমুজে ফ্যাট বা চর্বি নেই বললেই চলে। তাই এটা খেলে উচ্চ রক্তচাপ, হৃদরোগ ও কোলেস্ট্রলের মাত্রা বৃদ্ধির ঝুঁকি কম থাকে।

৮,ফুলকপি ও পালং শাক

ফুলকপি ও পালং শাক
ফুলকপি ও পালং শাক 2018


ফুলকপিতে প্রচুর ক্ষার আছে। সেজন্য ফুলকপি খেলে রক্ত পরিষ্কার হয় এবং ব্রণ, ফোঁড়া ইত্যাদিও কমে। 

কপির তরকারি খেলে প্রস্রাবের জ্বালা পোড়া কমে যায়, এমন-কি জন্ডিস রোগও কমে যায়।
পালং শাক আমাদের দেশে প্রচুর পরিমাণে হয়। গর্ভবতী মহিলাদের জন্যে এই শাক খাওয়া খুব প্রয়োজন।

এই শাকে প্রচুর পরিমাণে আয়রন আছে এবং ভিটামিনও আছে সেজন্যই এই শাক খাওয়া গর্ভবতী মহিলাদের জন্যে খুব প্রয়োজন।

চিকিৎসাশাস্ত্রের মতে, পালং শাক খেলে শীতকালে কফ, ঠা-া লেগে জ্বর হওয়া ইত্যাদি সমস্যা থেকে রক্ষা পাওয়া যায়।

পালং শাক খেলে কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যা দূর হয়।

৯,দারুচিনি

Daruchini
Daruchini

দারুচিনিতে আছে অ্যান্টি-ব্যাক্টেরিয়াল উপাদান। যা পেটে ব্যাক্টেরিয়া কারণে যে সব অসুখ হতে পারে তা থেকে বাঁচাতে সাহায্য করে।

দারুচিনির চা, দারুচিনির তেল, দারুচিনিগুঁড়া ইত্যাদি পেটের বিভিন্ন সমস্যা থেকে বাঁচাতে সাহায্য করে।

১০,গ্রিন টি

Greeb tea 2018
Greeb tea

শরীরের রোগ-প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে গ্রিন টির কোনো বিকল্প নেই। যারা অ্যালার্জিতে খুব ভোগেন তারা নিয়মিত গ্রিন টি পান করলে ভালো।

এ ছাড়া গ্রিন টি খেলে শরীরের বিভিন্ন রোগ-প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়। আর রোগ-প্রতিরোধ ক্ষমতার উন্নতি ঘটলে অ্যালার্জির মতো রোগ ধারের কাছেও আসতে পারে না। 

আশা করি পোস্টটি আপনাদের অনেক উপকারে আসবে। আপনাদের উপকার হলেই আমাদের লেখা সার্থক।

Leave a Reply