ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় নোঙর’র আয়োজনে বিশ্ব নদী দিবস উদযাপন

1

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি: “মানুষের জন্য নদী” এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে সারা দেশেই বিশ্ব নদী দিবস ২০২১ উদযাপন করা হয়েছে। রবিবার ২৬ সেপ্টেম্বর সকাল ১০টায় ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেস ক্লাব প্রাঙ্গণে নদী নিরাপত্তার সামাজিক সংগঠন “নোঙর’র” আয়োজনে নদী রক্ষার দাবি নিয়ে মানববন্ধন করেছে ।

নোঙর ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা শাখার সভাপতি শামীম আহমেদের সভাপতিত্বে ও নির্বাহী সদস্য সোহেল আহাদের পরিচালনায় অনুষ্ঠান উদযাপন করা হয়। মানববন্ধনে স্বাগত বক্তব্য রাখেন সংগঠনের সাংগঠনিক সম্পাদক কামরুজ্জামান খান (টিটু), শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন সাধারণ সম্পাদক খালেদা মুন্নী ও অর্থ ও আইসিটি সম্পাদক শিপন কর্মকার।

এছাড়াও বক্তব্য রাখেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেস ক্লাব সভাপতি রিয়াজ উদ্দিন জামি, জেলা নাগরিক ফোরামের সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা রতন কান্তি দত্ত, বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার সাধারণ সম্পাদক সাজিদুল ইসলাম, জেলা খেলাঘর সাধারণ সম্পাদক নিহার রঞ্জন সরকার, বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির ব্রাহ্মণবাড়িয়া সম্পাদক মণ্ডলীর সদস্য কমরেড নজরুল ইসলাম, অংকুর শিশু-কিশোর সংগঠনের সভাপতি আনিসুল হক রিপন, আবরনী’র নির্বাহী পরিচালক হাবিবুর রহমান পারভেজ, ঝিলমিল সংগঠনের পরিচালক মনিরুল ইসলাম শ্রাবণ, গাজী তানভীর, ভারত বাংলাদেশ সাংস্কৃতিক মৈত্রী পরিষদ ব্রাহ্মণবাড়িয়া সভাপতি করবী চক্রবর্তী, নোঙর রাজঘাট ইউনিট, সুহিলপুর ইউনিট, বিজয়নগর উপজেলার সদস্য আলমগীর হোসেন, আশরাফুল ইসলাম সুমন, আশুগঞ্জ উপজেলার রুবেল পারভেজ, সোহেল খান, সাইদুজ্জামান জুয়েল প্রমুখ । বক্তারা বলেন, নদীমাতৃক বাংলাদেশে সকল নদ-নদীর শেকড় হচ্ছে নদী-নালা, খাল-বিল, জলাশয়, হাওর-বাওর ইত্যাদি। জেলার খালগুলো ছিল মানব দেহের শিরা উপশিরার মতো ছড়িয়ে ছিটিয়ে ছিল প্রাণবন্ত। এখন এ খালগুলোর অধিকাংশই মরণ দশা।

ভূমিদষ্যুরা এসব খাল ভরাট করে অবৈধভাবে দোকানপাট, বাড়িঘরসহ বিভিন্ন স্থায়ী স্থাপনা নির্মাণ করছে। প্রভাবশালীরা আবর্জনায় পূর্ণ করে কোন কোন খাল বদ্ধ জলাশয়ে পরিণত করেছে। এসব খালের পানি নিষ্কাশন ক্ষমতাও হারিয়ে যাচ্ছে। জেলার ছোট বড় প্রতিটি নদী দূষণ, দখল, ভাঙন, ভরাট, সঠিকভাবে রক্ষণাবেক্ষণ না করার ফলে নদী বেষ্টিত জীবন জীবিকা ব্যহত হচ্ছে এবং ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য পরিবেশগত হুমকি হয়ে দাঁড়াবে। নদীর গতিপথ সীমিত ও পরিবর্তনের কারণে ভৌগলিক মানচিত্র পরিবর্তন হচ্ছে। উল্লেখযোগ্য ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরের ভিতর দিয়ে প্রবাহিত ঐতিহ্যবাহী টাউনখালের পৈরতলা ব্রিজ সংলগ্ন খালের মাঝামাঝি অংশে ফোর লেন সড়ক উন্নয়ন প্রকল্পে নতুন ব্রিজের পিলার স্থাপনের জন্য পাইলিং করা হচ্ছে। যার ফলে উক্ত টাউনখালের নাব্যতা সংকটে পড়বে।
বক্তারা আরো অভিযোগ করে বলেন, টাউনখালের উপর ব্রিজ নির্মাণের জন্য পাইলিং স্থাপনে প্রধানমন্ত্রীর নদী ও খাল রক্ষা/উদ্ধার কার্যক্রম ও নদী নিরাপত্তার সামাজিক সংগঠন “নোঙর” নদী রক্ষার আন্দোলন বিঘ্নিত হচ্ছে। সরকারের পাশাপাশি আমাদের জনগণ, রাজনৈতিক নেতৃবর্গ বিভিন্ন সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠন, তরুণ সমাজ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে হবে বলে তারা মনে করেন।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন